আনোয়ারা প্রতিনিধি

কর্ণফুলী উপজেলা দৌলতপুর গ্রামের বিধবা জহুরা খাতুনকে স্বপ্নময় মানব কল্যাণমুখী সংগঠনের পক্ষ থেকে শান্তির কুঠির উপহার দেওয়া হইছে।

বিধবা জহুরা খাতুনের ৩ ছেলের মধ্যে সচ্ছল ২ সন্তান আলাদা থাকেন তাদের পরিবার পরিজন নিয়ে। বাকি ১জন প্রতিবন্ধী হওয়ায় ছাড়তে পারে নি মা। তাকে নিয়ে কষ্ট দিন পার করছেন জহুরা খাতুন। আয় বিহীন পরিবারের দুঃখে কষ্ট দিন পার করছে প্রতিবন্ধী সন্তানকে নিয়ে মা জহুরা খাতুন।
টাকার অভাবে নিজের শেষ সম্বল থাকার ঘরটি মেরামত করতে পারছিলেন না জহুরা খাতুন।
তাই মানবিক সংগঠন স্বপ্নময় মানব কল্যাণমুখী সংগঠনের কাছে মানবিক আবেদন করেন তিনি।
সংগঠনের পরিচালনা পরিষদের সার্বিক বিবেচনা করে গত সপ্তাহে ঘরের কাজ শুরে করেন। গত ২৭ এপ্রিল ঘরের কাজ সমাপ্ত করে ২৯ এপ্রিল জহুরা খাতুনের হাতে শান্তির কুঠির উপহার দেন উক্ত মানবিক সংগঠন।
জহুরা খাতুনের শান্তির কুঠির নির্মাণে ১ লক্ষাধিক টাকা খরচ হয় বলে জানান উক্ত সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মুহাম্মদ হাবিবুল্লাহ চৌধুরী।

উদ্ধোধন সময় উপস্থিত ছিলেন
সংগঠন উপদেষ্টা মানবিক পুলিশ মিজানুল ইসলাম চৌধুরী রনি, প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মুহাম্মদ হাবিবুল্লাহ, সভাপতি মুহাম্মদ জাহেদুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আরেফিন আশফি,প্রচার সম্পাদক মুহাম্মদ জিসান,কার্যকরী সদস্য মুহাম্মদ মোতালেব।

সংগঠনের উপদেষ্টা মুহাম্মদ মিজানুল ইসলাম চৌধুরী রনি বলেন,সংগঠনের সকল সদস্য এবং দেশে-প্রবাসের মানবতা প্রেমিকদের সহযোগিতায় বিধবা জহুরা খাতুনকে এই শান্তির কুঠির উপহার দিতে সক্ষম হয়েছে স্বপ্নময় মানব কল্যাণমুখী সংগঠন। এমন মানুষ পৃথিবীর মাঝে বিরাজমান বলে জহুরা খাতুনের মত মানুষরা বাঁচার স্বপ্ন দেখে আজো।