পি কে রায়, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

বস্তায় আদা চাষ করতে গেলে প্রথমে একটি বস্তায় তিন ঝুড়ি মাটি, এক ঝুড়ি বালি, এক ঝুড়ি গোবর সার ও ২৫ গ্রাম ফিউরাডন লাগবে।

বালি পানি নিষ্কাশনে সাহায্য করে, ফিউরাডন উইপোকার উপদ্রব থেকে রক্ষা করবে।

মাটির সঙ্গে গোবর, বালি ও ফিউরাডন ভালোভাবে মিশিয়ে সিনথেটিক বস্তায় ভরে ঝাঁকিয়ে নিন তাতে মিশ্রনটি ভালোভাবে চেপে যাবে। সম্ভব হলে ১চামচ পটাশ সার মিশিয়ে নিন।

আলাদা একটি বালি ভর্তি টবে তিন টুকরো অংকুরিত আদা পুঁতে দিন।

এখানে বলে রাখা ভালো আদার কন্দ লাগানোর আগে ব্যাভিস্টিন দিয়ে শোধন করে নিলে ভালো হয়।

এতে ছত্রাকের আক্রমণ থেকে বাঁচবে। চাইলে অন্য কোনো ছত্রাকনাশকও ব্যবহার করতে পারেন। শোধনের পর আধা ঘণ্টা ছায়ায় শুকিয়ে নিতে হবে।

২০-২৫ দিন পর ওই আদা থেকে গাছ বের হবে। তখন আদার চারা সাবধানে তুলে বস্তার মুখে তিন জায়গায় বসিয়ে দিন। দিনের অধিকাংশ সময় রোদ পায় এমন স্থানে বস্তাটি রাখতে হবে।

কয়েক সপ্তাহের মধ্যে আদা গাছ বাড়তে থাকবে। চারা লাগানোর দু’মাস পরে আধা চামচ ইউরিয়া মাটিতে প্রয়োগ করুন। মাঝখানে খুঁড়ে মাটিটা একটু আলগা করে দিলে ভালো হয়।

এপ্রিল-মে মাসে আদা লাগালে জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি মাসে তোলার উপযুক্ত হয়ে যাবে।

এক একটি বস্তায় তিনটি গাছ থেকে এক-দেড় কেজি পর্যন্ত ফলন পাওয়া সম্ভব।

আদা তুলে নেওয়ার পর সেখানে সবজি হিসেবে (মরিচ, টমেটো, লেটুস প্রভূতি) চাষ করা যেতে পারে। সে জন্যে নতুন করে মাটি তৈরি করারও দরকার নেই।