মোহাম্মদ আলমাছ হোসেন আওয়াল বিশেষ প্রতিনিধি জামালপুর

জামালপুর: জেলার ইসলামপুর উপজেলায় জুয়ার আসর থেকে মো. জাহিদুল ইসলাম (৪৩) ও মো. মাহবুব হোসেন মেরাজ (৩৫) নামে দুই ইউপি সদস্যসহ ১৫ জুয়াড়িকে আটক করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সদস্যরা।

দিনগত রাতে ইসলামপুর পৌর শহরের পলবান্ধা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

আটক ইউপি সদস্য মো. জাহিদুল ইসলাম উপজেলার পাথর্শী ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য ও মোরাদাবাদ এলাকার মো. সাহেব আলীর ছেলে। এছাড়া মো. মাহবুব হোসেন মেরাজ একই ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও রৌহারকান্দা এলাকার মৃত মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে।

বাকি আটকরা হলেন- ইসলামপুর উপজেলার বোয়ালমারী এলাকার মো. আবুল কাশেমের ছেলে মো. রফিকুল ইসলাম (৩৫), পৌর শহরের পলবান্ধা এলাকার লুৎফর রহমানের ছেলে মো. সুমন মিয়া (৩৪), বোয়ালমারী এলাকার মৃত দুদু মণ্ডলের ছেলে মো. গোলাপ মিয়া (৩৫), পলবান্ধা এলাকার আমিরুলের ছেলে শেখ ফরিদ (২৪), একই এলাকার শামছুল হকের ছেলে মো. ইমরান হোসেন (৩২), টঙ্গের আগলা এলাকার মৃত ফজলুর রহমানের ছেলে মো. সুজন শেখ (৩৫), একই এলাকার বধু শেখের ছেলে মো. ফুলু শেখ (৩৪), বোয়ালমারী এলাকার নান্নু মণ্ডলের ছেলে মো. শিহাব মণ্ডল (৩২), একই এলাকার মির্জা আলীর ছেলে মো. শামীম (২৫), দর্জিপাড়া এলাকার মৃত দুদু শেখের ছেলে মো. সোহেল শেখ (৩২), বোয়ালমারী এলাকার মো. সিরাজুল ইসলামের ছেলে  মো. আব্দুস সোবহান (৩৫), দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার বীর উৎমারচর এলাকার খোকা শেখের ছেলে মো. শেখ ফরিদ (৩৫), ও মৃত শাহাজদ্দিনের ছেলে মো. আনোয়ার হোসেন।

ডিবি পুলিশ জানায়, দীর্ঘদিন ধরে ইসলামপুর পৌর শহরের পলবান্ধা এলাকার মোহাম্মদ আমেজ উদ্দিনের নির্মাণাধীন তিনতলা ভবনের দ্বিতীয় তলায় জুয়ার আসর বসে আসছিল।

গোপন তথ্যের ভিত্তিতে ডিবি-২ এর পুলিশ সদস্যরা দিনগত রাতে সেখানে অভিযান চালায়। এ অভিযানে দুই ইউপি সদস্যসহ ১৫ জন জুয়াড়িকে আটক করা হয়।

পরে তাদের ইসলামপুর থানায় জুয়ার আইনে মামলা দিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি-২) ওসি সোহেল রানা বলেন, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে ১৫ জনকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

এ জেলাকে মাদক ও জুয়া শূন্যের কোঠায় নিতে আমাদের এমন অভিযান অব্যাহত থাকবে।