এস.এম রুবেল আকন্দ:
রাজনীতির মাঠে টিকে থাকতে হলে দরকার সবার আগে গঠন মূলক সমাজ সেবা। পাশাপাশি রাজনীতিকে ডাল হিসেবে ব্যাবহার না করে মানবতার সেবায় নিয়োজিত থাকা আর সেই সূত্র ধরেই ময়মনসিংহ সদর উপজেলা ভাবখালী ইউনিয়নে একজন উদীয়মান সমাজ সেবকের কথাই বলছিলাম। আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে নিজেকে আগাম পরিচিত দিচ্ছে। এদিকে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন শেষ হওয়ার সাথে সাথে চলতি সময়ে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে জটিল হিসাব নিকাশ শুরু হয়ে গেছে। আর সেই কারণে ময়মনসিংহ সদর উপজেলার মধ্যে আলোচনা হচ্ছে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে নিয়ে। চায়ের দোকানে দোকানে আলোচনার কেন্দ্র বিন্দু হচ্ছে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন যেমন ভাবখালী ইউনিয়নসহ ঘুরে দেখা যাই মোঃ ইসব আলী চায়ের দোকানে। পাশাপাশি সোহাগ, এরশাদ ও মুস্তাকের চায়ের দোকানও আলোচনা হচ্ছে। বাদ যাচ্ছে না ঘাগড়া ইউনিয়নের বিভিন্ন মোরের মোরের চায়ের দোকানে। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি বহু হুজুরও রয়েছে এ জাতীয় আলোচনা কিংবা সমালোচনা যাইহোক না কেন আসলে সাধারণ মানুষের হিসাব নিকাশই সঠিক। যদিও দলবাজির কারনে যোগ্য প্রার্থীও হেরে যায়। তারপরও কে হচ্ছেন সম্ভাব্য চেয়ারম্যান কিংবা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী। বর্তমানে স্ব স্ব পদে চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানের অবস্থান নিয়ে নানান প্রশ্ন উঁকি ঝুঁকি দিচ্ছে আর সেই কারণে কে হবে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান কিংবা ভাইস চেয়ারম্যান। অবশ্য ইতিমধ্যে দুই চারজনের নাম শোনা যাচ্ছে আড়ালে আবডালে। আর সেই কারণে নিজ এলাকার সাধারণ ভোটারদের পাশাপাশি সদর উপজেলার মধ্যে দাবি উঠেছে জগৎপট্টির কৃত্তি সন্তান ইঞ্জিনিয়ার শফিক উদ্দিন আহম্মেদ নয়নকে নিয়ে। আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে দেখতে চায়। সমাজ সেবায় রয়েছে সুখ্যাতির পাশাপাশি মুরব্বি জ্ঞান দারুণ। এক কথায় অসাধারণ বললেও ভুল হবে না। আর সেই কারণে সকলের আস্থার প্রতিক ইঞ্জিনিয়ার শফিক উদ্দিন আহম্মেদ নয়ন। এদিকে দিন যতোই যাচ্ছে আলোচনা ততই তীব্র গতিতে হচ্ছে একজন চমৎকার মানুষ ও নিরহংকার অবশ্য আজকের লেখনীর মাধ্যমে আলোচনা হচ্ছে একজন ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার শফিক উদ্দিন আহম্মেদ নয়নকে নিয়ে। যদিও বর্তমান সময়ে আরও কিছু কিছু প্রার্থীর নামডাক শোনা যাচ্ছে। কেহ কেহ নিজ উদ্দোগে প্রচার করে যাচ্ছে কৌশল অবলম্বন করে। অপরদিকে আরও বহু প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে আড়ালে আবডালে। আবার অনেকে খরচের ভয়ে কুঁকড়ে যাচ্ছেন কৌশল অবলম্বন করে। অবশ্য কেহ কেহ দলের সুযোগ কাজে লাগিয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হওয়ার স্বপ্নে বিভোর। কিন্তু একজন চূড়খাই মডেল স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার শফিক উদ্দিন আহম্মেদ নয়ন নিজ যোগ্যতা দিয়ে ইতিমধ্যে আলোচনার উঠে এসেছে, রাজনৈতিক পদও মর্যাদা নিয়ে ভাবেন কম। তারপরও ময়মনসিংহ সদর উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারন সম্পাদক হিসেবে সুপরিচিত। এছাড়াও ময়মনসিংহ জেলা শাখার বঙ্গবন্ধু ডিপ্লোমা প্রকৌশলী পরিষদে যুগ্ম সাধারন সম্পাদক হিসেবেও একটা চমৎকার পরিচিতি রয়েছে ইঞ্জিনিয়ার শফিক উদ্দিন আহম্মেদ নয়ন। এদিকে সদর উপজেলার মধ্যে দলমত নির্বিশেষে সাধারণ মানুষের কাছে দারুণ গ্রহণ যোগ্যতা রয়েছে। অবশ্য মহান আল্লাহ্ রাব্বুল আলামিনের রহমতের দরকার রয়েছে। সার্বিক বিবেচনায় মনোনীত ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার শফিক উদ্দিন আহম্মেদ নয়ন এই সময়ে দারুণ আলোচনায় মত্ত সাধারণ মানুষেরা সদর উপজেলার মধ্যে আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুর স্ব স্ব প্রার্থীর কথা বলছিলেন। সদর উপজেলার মধ্যে আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করার জন্য বার্তা দিচ্ছেন ইঞ্জিনিয়ার শফিক উদ্দিন আহম্মেদ নয়ন। অবশ্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়ে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়ার মিশন নিয়ে দুর্দান্ত গতিতে এগিয়ে চলছে ইঞ্জিনিয়ার শফিক উদ্দিন আহম্মেদ নয়ন ভাই। দারুণ সদালাপী ও মিশুক স্বভাবের কারণে ইতিমধ্যে সাধারণ মানুষের কাছে দারুণ গ্রহণ যোগ্যতা পাচ্ছে। আর সেই কারণে আত্ম মানাবতার সেবার এগিয়ে আসছে সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী গণমাধ্যমে সাথে কথা হয় ইঞ্জিনিয়ার নয়ন এর সাথে। তিনি বলেন, আমি নেতা হওয়ার জন্য নয় বরং সাধারণ মানুষের সেবা করার জন্য কাজ করে যাচ্ছি। এলাকার মানুষের অনুরোধে আমি আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে কাজ করে যাচ্ছি বাদবাকি সৃষ্টি কর্তার দয়া। এলাকার সন্মানিত ভোটাররা আমাকে যোগ্য মনে হলে সন্মান স্বরূপ ভোট প্রয়োগ করবেন। তিনি আরও বলেন, আমি মানুষের কল্যানে সব সময় এগিয়ে আসবো দলমত নির্বিশেষে সকল শ্রেণির মানুষের পাশে থাকবো ইনশাআল্লাহ্। দলের পরিচয় বড় কথা নয় আমরা সকলেই সদর উপজেলার মানুষ। আমরা সকলেই একটি পরিবারের লোকজন।