মারুফ সরকার, স্টাফ রিপোর্টার  : আওয়ামী ফ্যাসিবাদী সরকার এদেশের জনগণের ওপর চেপে বসে আছে বলে  মন্তব্য করে বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সদস্য সচিব সাবেক ফুটবল দলের অধিনায়ক আমিনুল হক বলেন, আওয়ামী সরকার মেঘা উন্নয়নের নামে মেঘা দূর্নীতি করে দেশের টাকা লুটপাট করে বিদেশে প্রাচার করছে। দেশ ও দেশের জনগণের কথা তারা চিন্তা করে না। বাংলাদেশের জনগণের কাছে তাদের কোন জবাবদিহিতা নেই। কারন বাংলাদেশের জনগণের ভোটের কোন দরকার তাদের পরে না। তারা নিজেরা নিজেরাই ডামি নির্বাচন করে সরকার গঠন করে। এই আওয়ামী সরকার রাষ্ট্রীয় যন্ত্রগুলো ব্যবহার করে বিদেশি প্রভুদের সহায়তায় এদেশের জনগণের ওপর চেপে বসে আছে। 

 

আমিনুল হক বলেন, আজকে দেশের বিচার বিভাগকে আওয়ামী সরকার এমন ভাবে দলীয়করন ও রাজনৈতিক করন করেছে যে সাধারণ মানুষ তার সঠিক বিচার আশা করতে পারে না। তিনি বলেন, এরফলে বিচার বিভাগের উপর সাধারণ মানুষের আস্হা ও বিশ্বাস উঠে গেছে।এই সবই কিন্তু আওয়ামী সরকারের কারনে। আজকে দেশের সাংবাদিকদের কথা বলার স্বাধীনতা নেই, জনগণের বাক স্বাধীনতা নেই। কেউ সত্য কথা বললেই তার উপর নেমে আসে অত্যাচার ও নির্যাতনের স্টীম রোলার। 

আজ রবিবার ( ২৮ এপ্রিল) দুপুরে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির সাতদিন ব্যাপি কর্মসূচির দ্বিতীয় দিনে পল্লবীর তিনটি স্পট ৯২ নম্বর ওয়ার্ড দোয়ারীপাড়া, ৫ নম্বর ওয়ার্ড কালশী ও ৩ নম্বর ওয়ার্ড এভিনিউ ৫ এ পথচারী জনসাধারণের মাঝে বোতলজাত বিশুদ্ধ পানি, খাবার স্যালাইনও জনসচেতনতা মূলক লিফলেট  বিতরণের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 

এসময় বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল, মহানগর উত্তরের সদস্য এবিএমএ রাজ্জাক, মাহাবুবুল আলম মন্টু, ঢাকা মহানগর পশ্চিম ছাএদলের সাধারন সম্পাদক জুয়েল হাসান রাজ, স্বেচ্ছাসেবকদল ঢাকা মহানগর উত্তরের সদস্য সচিব মোঃ রনি, পল্লবী থানা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া, রুপনগর থানা বিএনপির আহবায়ক জহিরুল হক,পল্লবী থানা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক কামাল হোসেন, আশরাফ গাজী, আনিসুর রহমান আনিস, মোতালেব হোসেন হাওলাদার, রূপনগর থানার যুগ্ম আহবায়ক ইন্জিঃ  মজিবুল হক, ৩ নম্বর ওয়ার্ড সভাপতি নজরুল ইসলাম নজু, ৫ নং ওয়ার্ড সভাপতি বাদশা মিয়া, ৯২ নং ওয়ার্ড সভাপতি নবী হোসেন, সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিনসহ স্হানীয় বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।  

আমিনুল হক বলেন, বাংলাদেশের ৩০০ এর অধিক নদ নদী খাল রয়েছে যা আওয়ামী সিন্ডিকেটের সরকার দলীয় লোকজন অবৈধ ভাবে দখল করে ভরাট করেছে, এরপর তারা স্হাপনা তৈরি করে নিজেদের পকেট ভারী করেছে। ফারাক্কা বাধের ফলে দেশের বেশীরভাগ নদ নদী খাল আজ পানি শূন্য রয়েছে। এসবই তীব্র তাপদাহের কারন। তিনি বলেন,আওয়ামী সরকার ক্ষমতায় এসে দীর্ঘ ১৭ বছর ধরে তারা বৃক্ষ রোপন না করে, তারা বৃক্ষ নিধন করেছে। তাদের বৃক্ষ নিধনের ফলে আজকে বাংলাদেশের যে আবহাওয়া তা পরিবর্তন এসেছে। 

তিনি বলেন, আজকে দেশের রিক্সা চালকরা যেখানে সারাদিন রিক্সা চালাতেন, কিন্তু তীব্র তাপদাহের কারনে তারা অর্ধেক বেলাও রিক্সা চালাতে পারছেন না। যারা মাঠে ঘাটে কৃষক শ্রমিক রৌদ্রে পুড়ে কাজ করছেন। 

দেখা যাচ্ছে, দিন শেষে তারা  তাদের ঘরের খাবার টুকুও ঠিকমত  জুটাতে পারেন না। কিন্তু বর্তমান এই আওয়ামী ডামী সরকারের এই দিকে নজর নেই। তারা তাদের তাদের নিজেদের নিয়েই ব্যস্ত রয়েছে। 

বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল বলেন, আজকে দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব হুমকীর মুখে। দেশ ও দেশের মানুষ জন্য জীবন দিয়ে  হলে ও দেশের স্বাধীনতা রক্ষা করবো।